দেশের প্রবীন আলেমে দ্বীন আল্লামা আব্দুল কাইয়ূম সিদ্দিকীর মৃত্যুতে বৃহত্তর সিলেটে শোকের ছায়া

প্রকাশিত: ৯:২৮ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৩, ২০২১

দেশের প্রবীন আলেমে দ্বীন আল্লামা আব্দুল কাইয়ূম সিদ্দিকীর মৃত্যুতে  বৃহত্তর সিলেটে শোকের ছায়া

মৌলভীবাজার টাউন কামিল মাদরাসার সাবেক অধ্যক্ষ, বৃহত্তর সিলেটের প্রবীন আলেমে দ্বীন আল্লামা আব্দুল কাইয়ূম সিদ্দিকীর প্রথম জানাজার নামাজ সম্পন্ন হয়েছে। আজ ১৩ আগস্ট দুপুর আড়াইটায় মৌলভীবাজার টাউন ঈদগাহে আল্লামা নজুমুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলীর ইমামতিতে হাজার হাজার মুসল্লি, সামাজিক ও রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ তার জানাজার নামাজে অংশগ্রহণ করেন।

আজ বিকাল সাড়ে ৫টায় বড়লেখা উপজেলার মুড়াউল নিজগ্রামে তার দ্বিতীয় জানাজার নামাজ শেষে মা-বাবার পাশে পারিবারিক কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হবে। মৃত্যুকালে তিনি ৩ ছেলে, ৩ মেয়ে, নাতি নাতনিসহ অসংখ্য ছাত্রশিক্ষক ও আত্মীয়স্বজন রেখে গেছেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার রাত ১. ১০ মিনিটে মৌলভীবাজার শহরের পশ্চিম বাজার এলাকার গুলবাগস্থ নিজ বাসায় তিনি ইন্তেকাল করেন। তাঁর মৃত্যুতে মৌলভীবাজারসহ বৃহত্তর সিলেটের ধর্মপ্রাণ মুসল্লি ও আলেম-উলামাদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

তাঁর প্রথম জানাজার নামাজের পূর্বে মৌলভীবাজার জেলা আল ইসলাহর সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আব্দুল আলিমের পরিচালনায় স্মৃতিচারণমূলক বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ আনজুমানে আল ইসলাহর কেন্দ্রীয় সভাপতি মাওলানা হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী, মৌলভীবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য নেছার আহমদ, মৌলভীবাজার জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিছবাহুর রহমান, মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র মো. ফজলুর রহমান, কেন্দ্রীয় আল-ইসলাহর সহ-সভাপতি মাওলানা ছরওয়ারে জাহান, মৌলভীবাজার জেলা আল ইসলাহর সভাপতি প্রিন্সিপাল মাওলানা শামছুল ইসলাম প্রমুখ।

আল্লামা আব্দুল কাইয়ূম সিদ্দিকী ১৯৫৪ সালে বড়লেখা উপজেলার মুড়াউল গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। পড়াশুনা সম্পন্ন করে বিভিন্ন মাদরাসায় তিনি শিক্ষকতা করেন। মৌলভীবাজার টাউন কামিল মাদরাসায় অধ্যক্ষ হিসাবে ৩৪ বছর দায়িত্ব পালন করে অবসর গ্রহণ করেন। তিনি উপমহাদেশের প্রখ্যাত বুযুর্গ আল্লামা আব্দুল লতিফ চৌধুরী ফুলতলী (র.) নিকট থেকে ইলমে তরিকতের তালিম নেন এবং তার নিকট থেকে খেলাফতি লাভ করেন। সাংগঠনিকভাবে তিনি আনজুমানে আল-ইসলাহ মৌলভীবাজার জেলা শাখার সভাপতির দায়িত্ব দীর্ঘদিন পালন করেন ও কেন্দ্রীয় শুরা সদস্য ছিলেন। এছাড়া মাদরাসায় অধ্যক্ষ থাকাকালীন মাদরাসা শিক্ষকদের সংগঠন জমিয়তুল মোদার্রেছীনেরও সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। তার সুদীর্ঘকালের শিক্ষকতার জীবনে হাজার হাজার মুফতি, মাওলানা, মুহাদ্দিস ও ফকিহ তৈরি করেছেন। বৃহত্তর সিলেটের প্রায় সকল আলিয়া মাদরাসায় তার ছাত্ররা শিক্ষকতা করছেন।

জমিয়তুল মোদার্রেছীনের শোক প্রকাশ
আল্লামা আব্দুল কাইয়ূম সিদ্দিকীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন জমিয়তুল মোদার্রেছীনের সভাপতি ও দৈনিক ইনকিলাবের সম্পাদক এএমএম বাহাউদ্দিন ও মহাসচিব মাওলানা শাব্বির আহমদ মোমতাজি। এক শোক বার্তায় তারা বলেন, মাওলানা আব্দুল কাইয়ূম সিদ্দিকী ছিলেন জমিয়তুল মোদার্রেছীনের একজন অভিভাবক। বয়োজেষ্ঠ্য এ আলেমে দ্বীন দীর্ঘদিন দ্বীন ইসলামের খেদমত আঞ্জাম দিয়েছেন। বিভিন্ন মাদরাসার পৃষ্ঠপোষকতা ও শিক্ষা সম্প্রসারণে তার অবদান অনস্বীকার্য। তারা শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করে তার মাগফিরাত কামনা করেন।

এদিকে তাঁর মৃত্যুতে কেন্দ্রীয় আল ইসলাহর সভাপতি মাওলানা হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী ও মহাসচিব অধ্যক্ষ একেএম মনোওর আলী, মৌলভীবাজার জেলা আল ইসলাহর সভাপতি অধ্যক্ষ মাওলানা শামছুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আব্দুল আলিম শোক প্রকাশ করেছেন।